বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ১১:৫২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ভালোবাসা নিখোঁজ রূপগঞ্জে বিপুল ভোটে বিজয়ী উপজেলা চেয়ারম্যানের সাথে ফুলের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আলমগীর হোসেন মাতোয়ারা রূপগঞ্জে বন্ধুদের সাথে গোসল করতে নেমে পানিতে ডুবে কলেজ ছাত্রের মৃত্যু মধুপুরে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে এক যুবকের মৃত্যু মধুপুর উপজেলা প্রশাসন ও ইসলামিক ফাউণ্ডেশনের উদ্যোগে ইমামদের সাথে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত ঈদগাঁও বাজারের বাঁশঘাটায় অগ্নিকাণ্ডে ৪২টি দোকান পুড়ে ছাই : আহত ২  তাৎক্ষণিক অভিনয়ে জাতীয়পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ হয়েছে মধুপুরের সাবিকুন্নাহার বানী বিলাইছড়ি উপজেলায় ৪ নং বড়থলি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়াম্যান আতোমং মার্মা গুলিবিদ্ধ পাইকগাছা উপজেলা নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দের পর চলছে প্রার্থীদের বিরামহীন প্রচার-প্রচারণা

৫ বছরে রাঙ্গার অর্থ ৬ গুণ বেড়েছে

টি আই, মাহামুদ - বার্তা সম্পাদক
  • Update Time : বুধবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ২৫ Time View

রিয়াজুল হক সাগর,
রংপুর প্রতিনিধি:

জাতীয় পার্টির বহিস্কৃত মহাসচিব ও জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় চীফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গার নগদ অর্থের পরিমান গত ৫ বছরে বেড়েছে ৬ গুণের বেশি। সে সাথে জমিসহ স্থাবর সম্পত্তির পরিমাণও বেড়েছে তাঁর। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দেয়া হলফনামায় এসব তথ্য পাওয়া গেছে। জানা গেছে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রংপুর-১ আসন থেকে মসিউর রহমান রাঙ্গা নির্বাচিত হয়েছিলেন। একই আসনে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তিনি। নির্বাচনী মনোনয়নপত্রে প্রদত্ত হলফনামার তথ্য মতে ২০১৮ সালে তার নগদ অর্থ ছিল ২৭ লাখ ৮ হাজার ৫৪৬ টাকা। গত ৫ বছরে তা বেড়ে ২০২৩ সালে দাঁড়িয়েছে ৪ কোটি ২৪ লাখ ৬ হাজার ৬২৮ টাকায়। এ ছাড়া ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে ৫ বছর আগে জমা না থাকলেও এবার জমা রয়েছে ১ কোটি ৬৯ লাখ ৫৯ হাজার ৬৯৩ টাকা। ২০১৮ সালের হলফ নামায় সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগ ছিল ৮৯ লাখ ৫৬ হাজার ৯৩৪ টাকা। এবারে সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগ দেখানো হয়েছে ২ কোটি ১ লাখ ৪ হাজার ২১৫ টাকা। গত ৫ বছরে বেড়েছে জমিসহ স্থাবর সম্পত্তির পরিমাণও। ২০১৮ সালের হলফনামায় জমির পরিমান ১২ একর ৩৩ শতক দেখানো হয়েছিল। এবার তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৬ একর ৫৪ শতকে। আর পাঁচ বছর আগে কৃষি, অকৃষি জমি, আবাসিক ও বাণিজ্যিক ভবন, বাগান ও খামারের মূল্য ও আয় ছিল ৩ কোটি ৬৪ লাখ ২০ হাজার ২৭৫ টাকা। এবারে সে আয় বেড়ে হয়েছে ৪ কোটি ৪৭ লাখ ৪৯ হাজার ৬৩৬ টাকা। ২০১৮ সালে ব্যাংক ঋণ দেখানো হয়েছিল ৯৩ লাখ ৫৩ হাজার ৪১৫ টাকা। এবারের হলফনামায় ব্যাংক ঋণ দেখানো হয়েছে ১ কোটি ৭৬ লাখ ৩২ হাজার ৭৭৭ টাকা। আয়ের উৎস হিসেবে দেখানো হয়েছে- কৃষিখাত, বাড়ি-দোকান ভাড়া, ব্যবসা, চাকুরী শেয়ার ও সঞ্চয়পত্র।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Design & Develop BY Coder Boss
themesba-lates1749691102