মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ০৭:৩২ অপরাহ্ন

আজ রবীন্দ্র জয়ন্তী

Coder Boss
  • Update Time : বুধবার, ৮ মে, ২০২৪
  • ১২ Time View

প্রদীপ্ত রনন

আজ কবি গূরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মবার্ষিকী ” রবীন্দ্র জয়ন্তী ” ।

কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ১৮৬১ খ্রিস্টাব্দের ৮ই মে ,১২৬৮ বঙ্গাব্দের ২৫ বৈশাখ কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেস। আজ তাঁর ১৬৩ তম জন্মবার্ষিকী পালিত হচ্ছে। রবীন্দ্র জয়ন্তী এমন একটি উদযাপন যা কিংবদন্তি কবি, দার্শনিক, সঙ্গীতজ্ঞ এবং শিল্পী রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জীবন ও অবদানের প্রতি শ্রদ্ধা জানায়। এই স্মারক দিবসটি মহান তাৎপর্য বহন করে কারণ এটি শুধুমাত্র রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বহুমুখী প্রতিভাকে সম্মান করে না বরং সাহিত্য, সঙ্গীত এবং সামাজিক সংস্কারে তার অমূল্য অবদানকেও উদযাপন করে।
বাংলাদেশে রবীন্দ্র জয়ন্তীর অত্যন্ত সাংস্কৃতিক ও ঐতিহাসিক তাৎপর্য রয়েছে। বাংলা সাহিত্য, সঙ্গীত এবং শিল্পের উপর তার অদম্য প্রভাবের অনুস্মারক হিসাবে কাজ করে। রবীন্দ্র জয়ন্তী উপলক্ষে দেশের বিভিন্ন স্হানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, সেমিনার অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ছিলেন অগ্রণী বাঙালি কবি, ঔপন্যাসিক, সংগীতস্রষ্টা, নাট্যকার, চিত্রকর, ছোটগল্পকার, প্রাবন্ধিক, অভিনেতা, কণ্ঠশিল্পী ও দার্শনিক। তাকে বাংলা ভাষার সর্বশ্রেষ্ঠ সাহিত্যিক মনে করা হয়। রবীন্দ্রনাথকে ‘গুরুদেব’, ‘কবিগুরু’ ও ‘বিশ্বকবি’ অভিধায় ভূষিত করা হয়।
রবীন্দ্রনাথের গান তার অন্যতম শ্রেষ্ঠ কীর্তি। তার রচিত ‘জনগণমন-অধিনায়ক জয় হে’ ও ‘আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি’ গান দুটি যথাক্রমে ভারত ও বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত। মনে করা হয়, শ্রীলঙ্কার জাতীয় সংগীত ‘শ্রীলঙ্কা মাতা’ও রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে লেখা।
সাহিত্যে অসামান্য অবদানের জন্য ১৯১৩ সালে নোবেল পুরস্কার পান রবীন্দ্রনাথ। তার নোবেল বিজয় বাংলা ভাষা ও সাহিত্যকে এনে দেয় গৌরবের মুকুট। এশিয়া মহাদেশে সাহিত্যে নোবেল পাওয়া তিনিই প্রথম লেখক।
রবীন্দ্রনাথ এমন একজন সাহিত্যিক যার কবিতা , সংগীত, উপন্যাস,নাটকের আবেদন আজ থেকে একশ বছর আগে যেমন ছিল ,এখনো আছে , একশ বছর পরও থাকবে ।হয়ত রবীন্দ্রনাথ নিজের এই সৃষ্টি সম্পর্কে উপলদ্ধি করতে পেরেছিলেন । তাই তো তিনি লিখে গেছেন ” আজি হতে শতর্বষ পরে/ কে তুমি পড়িছ বসি আমার কবিতাখানি/শত কৌতুহল ভরে/ . . . আজি হতে শতর্বষ পরে/ এখন করিছো গান সে কোন নুতন কবি/ তোমাদের ঘরে!’
রবীন্দ্রনাথ তাঁর সৃষ্টির মাধ্যমে আমাদের মাঝে বেঁচে থাকবেন অনন্তকাল ।আজ তাঁর জন্ম জয়ন্তীতে এটাই প্রত্যাশা ।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Design & Develop BY Coder Boss
themesba-lates1749691102